মাহফুজ আনামের মামলা প্রত্যাহারে শেখ হাসিনাকে এএনএন’র চিঠি

0

নিজস্ব প্রতিবেদক :
ঢাকা, ২১ ফেব্রুয়ারি : বাংলাদেশি ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক ও প্রকাশক মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে করা সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন দ্য এশিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক (এএনএন)।
এএনএন’র সদস্যভুক্ত সম্পাদকরা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করে একটি চিঠিতে তার বিরুদ্ধে করা সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন। ডেইলি স্টারের সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা বাংলাদেশের গণমাধ্যমের জন্য হয়রানি ও ভীতিপ্রদর্শন বলেও মনে করে এএনএন।
বাংলাদেশের ডেইলি স্টারসহ এশিয়ার ১৯টি দেশের ২২টি মিডিয়ার একটি সংগঠন এএনএন। মাহফুজ আনাম এই সংগঠনের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য।
আনামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের দণি এশিয়ার দেশ বাংলাদেশের গণমাধ্যমে হয়রানি ও ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে বলে মনে করে এএনএন। এটি বাংলাদেশের গণমাধ্যমকে হুমকি ও চ্যালেঞ্জর মুখোমুখি করবে। মাহফুজ আনামের কর্মকান্ড বিগত দিনগুলোতে এই সংগঠনের অন্য সদস্যদের উৎসাহিত করে সাংবাদিকতায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে বলেও চিঠিতে বলা হয়।
একই সঙ্গে এই সম্পাদকীয় জোটকে ১৭ বছর ধরে সহায়তা করছেন আনাম। কিছু প্রকাশিত প্রতিবেদনের জন্য তিনি বিরলভাবে নিজের ভুল স্বীকার করেছেন। ২০০৭ সালে টাস্ক ফোর্স ইনটেরোগেশন সেল (টিএফআইসি) এর কিছু প্রতিবেদন যাচাই না করেই তিনি ডেইলি স্টারে প্রকাশ করেছিলেন তিনি। ওই সংস্থার দেওয়া ভুল তথ্য ছাপানো ভুল সিদ্ধান্ত ছিল বলে তিনি স্বীকার করেন। তার জন্যেই আনামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
উপরোক্ত কারণেই মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে ৭৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে চিঠিতে সম্পাদকরা উল্লেখ করেছেন। রাজনৈতিক আক্রোশের কারণেই তার বিরুদ্ধে এই ধরনের মামলা দায়ের করা রাষ্ট্রের জন্য মঙ্গলজনক নয়। ৩ ফেব্রুয়ারি একটি টেলিভিশন টক শোতে মাহফুজ আনাম টিএফআইসির কিছু প্রতিবেদন প্রকাশ করেন যথাযথ যাচাই বাছাই না করে তার পরেই তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে শুরু করে।
১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে ৫০ জেলায় ৭৫টি মামলা করা হয়। এর মধ্যে ১৭টি রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ করা হয়েছে। আর বাকিগুলো মানহানির মামলা। ১৬ ফেব্রুয়ারি একটি আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। তবে তার একদিন পরেই তা সমন বলে ব্যাখ্যা করা হয়। ২৮ মার্চের আগেই তার জবাব দিতে বলা হয়েছে মামলাগুলোতে।

Share.

About Author

Leave A Reply