কোয়ালকোম আনলো স্ক্রিনের নিচের সেন্সর

0

আইটি ডেস্ক : স্মার্টফোন আর ট্যাবলেট স্ক্রিনের নিচে স্থাপন করা যাবে এমন ফিঙ্গারপ্রিন্ট আইডি সেন্সর বানানোর ঘোষণা দিয়েছে চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কোয়ালকম।
এই উপাদান ভেজা আঙুল বা পানির নিচেও ব্যবহার করা যাবে বলে দাবি নির্মাতাদের। সেইসঙ্গে এটি হৃদস্পন্দন মাপতেও ব্যবহার করা যেতে পারে। এই সেন্সর নির্মাণের ফলে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস নির্মাতাদের জন্য আরও পাতলা ডিজাইনের ডিভাইস তৈরির পথ খুলে গেল, বলা হয়েছে বিবিসি’র প্রতিবেদনে।
অন্যদিকে এক বিশেষজ্ঞের মতে, অ্যাপল এখনও স্ক্রিনের সঙ্গে সমন্বয় করতে পারে এমন নিজস্ব সেন্সর দিয়ে কোয়ালকম-কে হারিয়ে দিতে পারে।
কোনো কোড টাইপ ছাড়াই ডিভাইস আনলক করতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ব্যবহৃত হয়, সেই সঙ্গে লেনদেনের অনুমোদন দিতে ও পরিচয় শনাক্ত করতেও এর ব্যবহার রয়েছে। এখন পর্যন্ত এই সেন্সর টাচস্ক্রিনের পাশে বা ডিভাইসে পেছনে বসানো হতো।
চীনের সাংহাইয়ে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস-এ এই উদ্ভাবন উন্মোচন করে কোয়ালকম। এর এই সেন্সর আল্ট্রাসনিক শব্দতরঙ্গ নিঃসরণের মাধ্যমে কাজ করে। এই শব্দতরঙ্গ আঙ্গুলে থাকা ভাঁজগুলোতে কোথায় ধাক্কা খেয়ে প্রতিফলিত হয়ে সেন্সরে ফিরছে তার উপর ভিত্তি করে আঙ্গুলের ছাপ শনাক্ত করবে সেন্সরটি।
এই সেন্সরের একটি প্রাথমিক সংস্করণ মি৫ নামের স্মার্টফোনের নিচের অংশে একটি কাচের ফ্রেমের নিচে ব্যবহার করেছিল স্মার্টফোন নির্মাতা চীনা প্রতিষ্ঠান শিয়াওমি।
এই সেন্সর শুধুই ওএলইডি ডিসপ্লে’র সঙ্গে কাজ করবে। এটি ব্যবহারের জন্য স্মার্টফোনের স্ক্রিনের গ্লাস ০.৮ মিলিমিটারের বেশি পুর” হওয়া যাবে না। উৎপাদনকারীরা ২০১৭ সালের শেষে বা ২০১৮ সালের শুর”র আগ পর্যন্ত বেশি পরিমাণে এই সেন্সর অর্ডার করতে পারবেন না।
স্যামসাংয়ের সর্বশেষ ফ্যাগশিপ স্মার্টফোন গ্যালাক্সি এস৮-এ প্রতিষ্ঠানটির নিজস্ব এমন একটি ফিচার আনার গুঞ্জন শোনা গেলেও পরবর্তীতে এমন কিছু দেখা যায়নি।
বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম হ্যান্ডসেট নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল বর্তমানে কোয়ালকমের সঙ্গে বড় ধরনের আইনি লড়াইয়ে আছে, এ কারণে অ্যাপল এই সেন্সরের গ্রাহক হবে না বলেই ধারণা করা হচ্ছে। যদিও অ্যাপল কয়েকটি পেটেন্ট প্রকাশ করেছে, যা থেকে বোঝা যায় তারা স্ক্রিনের নিচের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর নিয়ে কাজ করছে। তবে, পরবর্তী আইফোনেই এই সেন্সর আনা হবে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

Share.

About Author

Leave A Reply