প্রতিদিন ৩টা থেকে ১০টা পর্যন্ত শাহবাগ অবরোধ

0

নিজস্ব প্রতিবেদক :
ঢাকা : সরকারি সব চাকরিতে ৩০ শতাংশ কোটা বহাল দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য শাহবাগ অবরোধ কর্মসূচির সময়ে পরিবর্তন এনেছে ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’।
এখন থেকে প্রতিদিন বেলা ৩টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করা হবে। এর পাশাপাশি প্রতিদিন দেশের মহাসড়কগুলো এক ঘণ্টা অবরোধ করা হবে।
মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতারা গত রোববার রাতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন।
গত বুধবার রাত থেকে তাদের লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি চলছে। রোববার বেলা ৩টার দিকে মুক্তিযোদ্ধা, তাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিরা শাহবাগে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন।
৩০ শতাংশ কোটা বহালের দাবি ও মন্ত্রিপরিষদ সচিবের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কর্মীরা। তারা বলেন, মন্ত্রিসভায় মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের যে পরিপত্র জারি হয়েছে, তা ‘অবৈধ কালাকানুন’। এটি সরাসরি স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থি। তাদের দাবি অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। সে ক্ষেত্রে অবরোধ ও আন্দোলন করে সারা দেশ অচল করে দেওয়া হবে।
সোমবার থেকে সারা দেশের সড়ক-মহাসড়কগুলোতে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে এক ঘণ্টা সময় অবরোধ করে রাখার ঘোষণাও দিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ।
মঞ্চের মুখপাত্র আ ক ম জামাল উদ্দিন বলেন, ‘সোমবার মন্ত্রিপরিষদের সাপ্তাহিক মিটিং। মিটিংয়ে সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া, নেতৃত্ব দিয়েছেন এমন ১২ জন মন্ত্রী আছেন। আমরা মনে করি, বাংলাদেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান দেখিয়ে মন্ত্রিসভা এই অবৈধ কালাকানুন এবং স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থি অবৈধ পরিপত্র প্রত্যাহার করে নেবে। তাদের কাছে অনুরোধ, প্রশাসনে ঘাপটি মেরে থাকা মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে অপসারণ করুন।’ এ সময় মন্ত্রিপরিষদ সচিবের পদত্যাগও দাবি করা হয়।
এদিকে সরকারি চাকরিতে পাঁচ ভাগ প্রতিবন্ধী কোটা বিনা শর্তে বহাল চায় প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদ।
তারা প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণির চাকরিতে পাঁচ শতাংশ কোটা প্রণয়ন, নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে তরুণ প্রতিবন্ধী প্রতিনিধি রাখা, জাতীয় প্রতিবন্ধী অধিদপ্তর ও প্রতিবন্ধীবিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠনসহ ১১ দফা দাবি তুলে ধরেন।
রোববার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মো. আলী হোসাইন তাদের ১১ দফা দাবি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের পাঁচ শতাংশ কোটার দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা কর্মসূচি পালন করে যাব।’

Share.

About Author

Leave A Reply