ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের সহজ জয়

0

ক্রীড়া প্রতিবেদক :
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর : সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাঁচ উইকেটে সহজেই জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এ জয়ের ফলে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে রইলো স্বাগতিকরা।
লক্ষ্য খুব একটা কঠিন ছিল না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের করা ১৯৫ রানের জবাবে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও তাই জিততে বেগ পেতে হয়নি বাংলাদেশকে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন মুশফিকুর রহিম। শেষ পর্যন্ত ৫৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি।
লিটন দাস আউট হয়েছেন ৪১ রানে। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে বড় ইনিংসের ইঙ্গিত দিয়েও সাকিব আউট ৩০ রানে। তবে ভুল করেননি মুশফিক, ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩১তম হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেন তিনি।
ব্যাটে ঝড় তুললেন সাকিব আল হাসান। তাতে জয়ের সুবাসও পেতে শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু ইনিংসটা লম্বা করতে পারলেন না। ২৬ বলে ৩০ রান করে ফিরে গেছেন তিনি। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন সাকিব। তিনি যখন ক্রিজে আসেন, দলের রান তোলার গতি ছিল কম। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে একের পর এক বল সীমানাছাড়া করে গতি তোলেন স্কোরে। ২৬ বলে ৪ বাউন্ডারিতে খেলে যান ৩০ রানের কার্যকরী ইনিংস। রোভম্যান পাওয়েলের বলে ‘বিগ’ শট খেলতে গিয়ে ধরা পড়েন তিনি উইকেটরক্ষক শাই হোপের গ্ল্যাভসে।
এছাড়া চমৎকার ব্যাটিংয়ে বড় ইনিংসের ইঙ্গিত ছিল লিটন দাসের ব্যাটে। কিন্তু বাজে শট খেলে ভালো একটি ইনিংসের ইতি টেনে দিয়েছেন তিনি। তার আউটের পর বাংলাদেশের স্কোর ছাড়ায় ১০০। ‘নো’ বলে রক্ষা পেয়েছিলেন লিটন। কেমার রোচের বলে ‘দ্বিতীয় জীবন’ পাওয়া এই ব্যাটসম্যান সুযোগটা কাজে লাগিয়ে নিজের সঙ্গে দলীয় রান বাড়িয়ে নিচ্ছিলেন। চমৎকার ব্যাটিংয়ে হাঁটছিলেন হাফসেঞ্চুরির পথেও। কিন্তু ভুল শট নির্বাচনের খেসারত দিতে হলো তাকে।
কেমো পলের অফ স্টাম্প বরাবর বল মিডউইকেটের দিকে খেলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার জোরে চালানো ব্যাটে বল না লাগলে সরাসরি আঘাত করে স্টাম্পে। বাজে শটে শেষ হয়ে যায় তার ৪১ রানের ইনিংস। বোল্ড হওয়ার আগে ৫৭ বলের ইনিংসে লিটন মেরেছেন ৪ বাউন্ডারি।
প্রত্যাশা অনেক বেশি ছিল তামিম ইকবালকে ঘিরে। যদিও চোট কাটিয়ে ফিরে প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচের স্মৃতিটা সুখকর হলো না তার। তার আউটে ধাক্কা খাওয়া বাংলাদেশ আরও চাপে পড়েছে ইমরুল কায়েসের বিদায়ে।
চোটের কারণে লম্বা সময় মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে তামিমকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়েই মাঠে ফিরেছিলেন তিনি। আর ফিরেই করেন সেঞ্চুরি। প্রস্তুতি ম্যাচের সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে শুরু করলেও সুবিধা করতে পারেননি। মাত্র ১২ রান করে ফিরে যান তিনি। রোস্টন চেসের বলে সহজ ক্যাচ দেন দেবেন্দ্র বিশুর হাতে।
তার আউটের পরপরই ফিরে যান ইমরুল। ওয়ান ডাউনে নেমে মাত্র ২ বল খেলে ৪ রান করে বোল্ড হয়ে ফিরেছেন এই ব্যাটসম্যান। ওশানে থমাসের বলটা বুঝতেই পারেননি ইমরুল! দ্রুত ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ।
ইমরুল কায়েস, লিটন দাস ও সৌম্য সরকার- তিনজনই ওপেনার। তামিম ইকবালের সঙ্গে তাহলে ওপেনিংয়ে কে খেলবেন? বাংলাদেশের একাদশ ঘোষণার পর প্রশ্নটা ঘুরছিল ভক্তদের মনে। বাংলাদেশ পরে ব্যাট করায় উত্তর পেতে অপেক্ষায় থাকতে হলো। শেষ পর্যন্ত তামিমের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নেমেছেন লিটন দাসই।
তামিম চোটে পড়ার পর ওয়ানডেতে ইমরুলের সঙ্গে ওপেনিং করেছেন লিটন। মিরপুরের প্রথম ওয়ানডের আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে তামিমের সঙ্গে ওপেন করেছিলেন আবার ইমরুল। যদিও ওই ম্যাচে ছিলেন না লিটন। ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে মূল লড়াইয়ে ইমরুল ও সৌম্যকে টপকে তামিমের ওপেনার সঙ্গী হয়েছেন লিটন।

Share.

About Author

Leave A Reply