কাঁচকুড়ায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে খাবার না পেয়ে ফিরে গেলো হাজার হাজার মানুষ

0

কাজি আরিফ হাসান : রাজধানীর উত্তর সিটিকর্পোরেশ আওতাধীন কাঁচকুড়া এক সমৃদ্ধ এলাকা। এলাকা সিটিকর্পোরেশ আওতাধিন হওয়ার পরে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত কাউন্সিলর নির্বাচনে ৪৪ নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতিক নিয়ে বিজয়ী হন কাঁচকুড়া
স্থায়ীবাসিন্দা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ি শফিকুল ইসলাম (শফিক) (সিনিয়র সহ-সভাপতি উত্তরখান থানা আওয়ামীলী, ঢাকা মহনগর উত্তর)। এই নব নির্বাচিত শফিক সাহেবকে আবার অনেকের কাছে গোল্ডেন শফিক নামেও পরিচিত। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি কাউন্সিল হিসেবে বিজয়ের এবং আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক জনাব ওবায়দুল কাদেরর (এম.পি) সুস্থতা কামনা করে ৮ মার্চ কাঁচকুড়া প্রাইমার স্কুল মাঠ প্রাঙ্গনে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন এই জনপ্রিয় নব নির্বাচিত এই কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম। উক্ত দোয়া ও মিলাদ-মাহফিলে প্রধান অতিথী হিসেবে ছিলেন এ্যাড. সাহরা খাতুন (ঢাকা-১৮ আসনের এম.পি, আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ,সাবেক সফল স্বরাষ্ট্র,ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী)। কিন্ত উক্ত অনুষ্ঠানে যোগদান করে বেলা ১টার সময় মেহমানদের খাবারের ব্যবস্থা করলেও যে পরিমান খাবারের ব্যবস্থা করে তা সোয়া ১ টার সময় খাবার শেষ হয়ে যায়। কিন্তু কর্তব্যরত ভলেনটিয়ার ও মাইকে প্রচার করেন পর্যাপ্ত খাবারের ব্যবস্থা করা আছে অথচো পরবর্তিতে বাকি অতিথী বৃন্দরা খাবারের জন্য বেলা ২:৩০ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে করতে খাবার না পেয়ে ব্যার্থ হয়ে চলে যান। এদিকে তথ্য নিয়ে জানা গেছে আনুমানিক পৌনে ৩ টার দিকে আরো ১০ ডেক বিরিয়ার তৈরির ব্যবস্থা করে ততোক্ষনে দূর দূরান্ত থেকে আসা অতিথী ও সাংবাদিক বৃন্দরা রাগে-ক্ষোভে ভারাক্রাত হয়ে চলে জান এবং যাওয়ার সময় বলতে নবনির্বাচিত কাউন্সিল বিজয়ী হওয়ার পরে একটা অনুষ্ঠান সফল করতেই ব্যার্থ তাহলে তিনি এলাকার উন্নয়নে কতটুকু সফল করবে তা আর আমাদের বুঝতে বাকি নেই। সরেজমিনে যেয়ে দেখা যায় উক্ত খাবার পরিচালনা যারা ছিলেন তারাই পূর্বের থেকে এলাকার বিভিন্ন নেতার বাসা খাবার পাঠিয়ে দেন দায়িত্বরতরা অথচো উপস্থিত অতিথী বৃন্দরা খাবার না খেয়ে ২/৩ ঘন্টা অপেক্ষা করে চলে যান।

Share.

About Author

Leave A Reply