ঢাকায় ফেরা শুরু করেছেন কর্মব্যস্ত মানুষেরা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঈদের ছুটি শেষ। রোববার থেকে শুরু হচ্ছে কর্মদিবস। তাই ঢাকায় ফেরা শুরু করেছেন কর্মব্যস্ত মানুষেরা। ঈদের ছুটির কয়েকদিন পরিবার ও স্বজনদের সঙ্গে কাটিয়ে আবারো তারা ফিরছেন যান্ত্রিক নগরীতে।
শনিবার রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল, গাবতলী বাস টার্মিনাল ও মহাখালী বাস টার্মিনালগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে, ঈদের ছুটি শেষে মানুষজন ঢাকায় ফিরছেন। কেউ একা আবার কেউ পরিবার নিয়ে ফিরছেন। কোনো কোনো পরিবহনে দেখা গেছে, সিট না পেয়ে দাঁড়িয়ে বা বাসের ভেতরে চলাচলের জায়গায় বসে ঢাকায় ফিরছেন।
চট্টগ্রাম থেকে সায়দাবাদ আসা প্রিয়তি জান্নাত বলেন, ‘প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের ছুটি কাটিয়ে আবার ফিরলাম। খুব সুন্দরভাবে এসেছি। কোনো সমস্যা হয়নি। কোথাও যানজট পাইনি। ’
ফকিরাপুলে কথা হয় ইউনিক পরিবহনের গাড়িচালক রহিম উদ্দীনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘রাস্তা ফ্রি। যানজট নাই। সহজে চালিয়ে আসতে পেরেছি।’
তিনি বলেন, ‘গতকাল ও আজ ঢাকায় মানুষের ফেরার চাপ বেশি। এই সপ্তাহে মানুষের ফেরার চাপ কিছুটা থাকবেই।’
সিলেট থেকে আসা মঈনুদ্দীন সরকার বলেন, ‘পরিবারের সঙ্গে ঈদ করে আসলাম। বাড়ি ছেড়ে আসতে ইচ্ছা হয় না। কিন্তু প্রয়োজনের তাগিদে আসতে হয়। অনেক ভালোভাবে এসেছি। রাস্তা ফাঁকা ছিল। কোনো জ্যামে পড়তে হয়নি।’
গাইবান্ধা থেকে গাবতলী আসা মো. সবুজ বলেন, ‘লম্বা জার্নি কিছুটা কষ্টের। সঙ্গে স্ত্রী-সন্তান ছিল। তবে ঈদে পরিবারের সঙ্গে থাকতে পারায় ভালো সময় পার করে এসেছি। ’
জামালপুর থেকে আসা আদনান আবির বলেন, ‘কাল থেকে অফিস শুরু। তাই সব ফেলে ছুটে চলে আসা। বাড়ির দিনগুলো খুব মিস করছি। ভালোবাবে ফিরেছি, তাই আল্লাহর কাছে শুকরিয়া। ’
এদিকে, পরিবহন সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঢাকায় ফেরার চাপ এই সপ্তাহ পর্যন্ত থাকবে। তবে এখনো অনেক মানুষ ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছেন। এদের অনেকে বাড়ি ফিরছেন আবার অনেকে ঘুরতে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে যাচ্ছেন। ’
ইউনিক পরিবহনের ফকিরাপুল কাউন্টারে কর্মরত সাইদুর রহমান বলেন, ‘অনেকে ঈদের সময় টিকিট পায়নি বলে বাড়ি যেতে পারেনি। এখন হাতে সময় নিয়ে অনেকে বাড়ি যাচ্ছে। এদের মধ্যে ব্যবসায়ীরা বেশি। আর অনেকে দেশের দর্শনীয় স্থানগুলোতে ঘুরতে ঢাকা ছাড়ছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি যাচ্ছেন। ’
ঈদে ঘুরতে অনেকে দেশের বাহিরেও যাচ্ছেন। এনআর ট্রাভেলসের রাসেল স্কয়ার কাউন্টারে কর্মরত মো. ফজলুল বলেন, ‘ঢাকা-কলকাতার টিকিটের প্রচুর চাহিদা এখন। অনেকে একা বা পরিবার নিয়ে ভারতে ঘুরতে যাচ্ছে। ’

Share.

About Author

Leave A Reply