দাকোপে দুস্থ পরিবারদের সাথে মত বিনিময় করেন গ্লোরিয়াঝর্ণা এমপি

0

নিজস্ব প্রতিনিধি :
দাকোপ, খুলনা : অবহেলিত দাকোপের ৯ ইউনিয়নে ২১টি পয়েন্টে নদী ভাঙ্গন কবলিত স্থান এবং দ্রুতসুচিকিৎসার জনস¦াস্থ্য কেন্দ্রে যাতায়াতের রাস্তা ও দুস্থ পরিবারদের মাঝে সরকারিবরাদ্দকৃত ঘর বিতরনের জন্য আশ্বস্থ করেন খুলনা ও বাগেরহাট -৩০ সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ গ্লোরিয়াঝর্ণা।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায় দীর্ঘ দিন ধরেখুলনার দক্ষিন অঞ্চলে অবহেলিত আইলায় ক্ষতি গ্রস্থ দাকোপের ৩টি দ্বীপে অবস্থানকৃত প্রায় ৪লাখ মানুষ নদী ভাঙ্গন আর রাস্তা ঘাটের করুন দশার কারণে সর্বক্ষণ রয়েছে আতংকে। ২০০৯ সালের২৫ শে মে সর্বনাশা আইলায় কেড়েনিয়েছিল সুতারখালী –কামারখোলা ২টি ইউনিয়নের ২ লাখমানুষের সর্বশ্য। সেই হতে তারা খেয়ে না খেয়ে অনাহারে অর্ধহারে জীবন যাপন কার্য্যক্রমপরিচালনা করে আসছিল। ঐ সময় সরকার কর্তৃক বিভিন্ন এন জি ওর মাধ্যমে যত কিঞ্চিতসহযোগিতা পেয়েও তাদের দীর্ঘ দিনের ক্ষতি পূরণ হয়নি। তাছাড়া নদী ভাঙ্গন লেগেই আছে।ভাঙ্গন প্রতিরোধের কোন ব্যবস্থা অদ্যবদি হয়নি। ফলে নদী ভাঙ্গন অব্যহত রয়েছে। কোন্ দিন আবারও আইলার রুপ নিতে পারে এ উপজেলায়। যেসকল স্থানে নদী ভাঙ্গন রয়েছে- শিবসা নদীরতীরে,ঝুলনপাড়া, কালাবগী, বৃহস্পতিবার বাজার, কারাবগী ফরেষ্ট অভিমুখে,পন্ডিত চন্দ্র সরকারী প্রাথমিকবিদ্যালয় পর্যন্ত ১/২ কিঃ মিঃ রাস্তা,নলিয়ান বাজার লঞ্চ ঘাট ফরেষ্ট রেঞ্চ অফিস পর্যন্ত ১ কিঃ মিঃ ,গুনারী কালী বাড়ি লঞ্চ ঘাট হয়ে গোল বুনিয়া ক্লোজার পর্যন্ত ১ কিঃ মিঃ , জেলেখালী হতেকামারখোলা খেয়া ঘাট পর্যন্ত ২ কিঃ মিঃ , তিলডাঙ্গা তেতুল তলা হতে গোবিন্দ লাল মাধ্যমিকবিদ্যালয় পর্যন্ত ২ কিঃ মিঃ,তিলডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ি হতে ঝালবুনিয়া খেয়াঘাট ১.৫ কিঃমিঃ,ঝপঝুপি নদীর বিভিন্ন স্থানে টুকিটাকি ভাঙ্গন লেগে আছে। পানখালী ফেরিঘাট সংলগ্ননদী ভাঙ্গনের করুন দশা পোদ্দারগঞ্চ ফেরিঘাটের আশপাশ বেহাল দশা ,আমতলা পুলিশ ফাঁড়ি হয়েবানিশান্তা পতিতা পল্লী এমনকি ঢাংমারী ফরেষ্ট রাজস্ব অফিস পর্যন্ত ৩ কিঃ মিঃ রাস্তাঝুঁকিপূর্ন। এক কথায় ৩টি দ্বীপে অবস্থানকৃত ৯ টি ইউনিয়নে ৪ লাখ মানুষ সর্বক্ষণরয়েছে আতংকে। কোন সময় কি হয়ে যায়। যদিও বিশ্ব ব্যাংক ৩১ ও ৩২ নং পোল্ডারে রাস্তা সংস্কারনির্মান কাজ করছেন। সেখানে চলছে ব্যাপক অনিয়ম আর দুর্নীতির আশ্রয়।ক্ষতিগ্রস্থ ও অসহায়দের সরকার বরাদ্দকৃত কিছু ঘর এর ব্যবস্থা করবেন বলে পরিদর্শনকালেসংসদ গ্লোরিয়া ঝর্ণা তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।এ সময় তার সফর সঙ্গী,নির্বাহী অফিসার আঃ ওয়াদুদ, থানা ভারপ্রাপ্তকর্মকর্তা ও স্থানীয়দের আশ্বাস্থ করেছেন অবহেলিত দাকোপের মানুষের মুখে হাসি ফুটাতেদেশের প্রধান মন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাকোপের হতদরিদ্র মানুষের সুখদুঃখের কথা তুলে ধরব এবং এ অঞ্চলের মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে এমপির যা কিছু করনীয় তিনি তা করবেন।

Share.

About Author

Leave A Reply