আবরার হত্যার প্রতিবাদে নোয়াখালীতে মানববন্ধন

0

নোয়াখালী প্রতিনিধি : বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার দাবীতে নোয়াখালীতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা। এসময় পুলিশ তাতে বাধা ও লাঠি চার্জের চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ করছে তারা। তবে পুলিশ বলছে আবরার হত্যার ঘটনাকে ইস্যু করে বহিরাগত জামায়ত শিবিরপন্থীরা শহরে প্রধান সড়কে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করায় তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে তারা প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে মানববন্ধন করে।
মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন-সমাবেশে করে তারা। আধা ঘন্টাব্যাপী এ কর্মসূচিতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। এ সময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দেয়।
শিক্ষার্থীরা জানান, তারা টাউন হলের মোড়ে দাড়িয়ে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করতে চেয়েছিলো। কিন্তু পুলিশ তাদের লাঠিচার্জ করার চেষ্টা করে ওই স্থান থেকে তাড়িয়ে দেয়। পরে তারা বাধা উপেক্ষা করে প্রেসক্লাবের সামনে কর্মসূচি পালন করে।
শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে আবরার হত্যায় জড়িতদের গ্রেপ্তার এবং দ্রুত বিচার আইনে শাস্তি নিশ্চিত করার দাবী জানান।
এ বিষয়ে সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবীর হোসেন জানান, মানববন্ধন করতে সোনাইমুড়ী, চাটখিলসহ বিভিন্ন উপজেলা থেকে জামায়াত শিবিরের কর্মীরা এসেছে। তাদের মধ্যে শহরের কোন শিক্ষার্থী ছিলো না। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে টাউন হলের মোড় থেকে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে তাদেরকে ধাওয়া বা কোন প্রকার লাঠিচার্জ করা হয়নি।

নোয়াখালীতে আগুনে পুড়ে ৮টি দোকান ছাই
নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে ৮টি দোকান পুড়ে অন্তত ৩০লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে দক্ষিণ চরফকিরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন মদিনা মার্কেটে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এদিকে মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের নগদ ১০হাজার টাকা করে প্রদান করেন বসুরহাট পৌর মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা।
স্থানীয়রা জানান, রাত ৩টার দিকে হঠাৎ করে বাজারের একটি দোকানে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু আগুন দ্রুত পাশের দোকানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কোম্পানীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এরআগে আগুনে বাজারের মুদি, সেলুন, নারিকেল ও চা দোকানসহ ৮টি দোকান ভস্মিভূত হয়।
কোম্পানীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. সেলিম জানান, ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। স্থানীয়রা বলছে একটি দোকানে গ্যাসের সিলিন্ডার ছিলো, আগুন লাগার পর-পর সিলিন্ডারটি বিষ্ফোরণ হলে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এ ক্ষতি হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি বলে জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা।

Share.

About Author

Leave A Reply