প্রতিদিন ১ মুঠো বাদাম কমায় মারাত্মক ৫ টি স্বাস্থ্যঝুঁকি

0

স্বাস্থ ডেস্ক: দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিন’ এ প্রকাশিত গবেষণাপত্র হতে জানা যায় যাঁরা প্রতিদিন বাদাম খান তারা অন্যান্যের তুলনায় হাটের্র সমস্যা, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা এবং ক্যান্সারে কম আক্রান্ত হন। গবেষণায় দেখা গেছে, বাদামে বিদ্যমান অসম্পৃক্তফ্যাটি অ্যাসিড, প্রোটিন, ফাইবার, ভিটামিন, খনিজ পদার্থ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহ হার্ট, ক্যান্সার ও অন্যান্য প্রদাহজনিত রোগের প্রতিরক্ষাকারী হিসেবে কাজ করে। এবং একটি নতুন গবেষণায় দেখা যায়, প্রতিদিন বাদাম খেলে ২০% পর্যন্ত মৃত্যু ঝুঁকি কমে।
১) হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়
ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড একটি হাটের্র স্বাস্থ্য রক্ষাকারী ফ্যাটি অ্যাসিড। যা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি দূর করে। বাদাম এই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের বেশ ভালো একটি উৎস। সবচাইতে সহজলভ্য ও প্রধান উদ্ভিজ্জ ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের উৎস বাদাম। এ ছাড়াও বাদামে রয়েছে ভিটামিন ই। ভিটামিন ই ধমনিতে প্লাক হওয়া প্রতিরোধ করে ও প্লাক কমাতে সাহায্য করে। ধমনিতে প্লাকের কারণে বুকে ব্যথা, করোনারি আর্টারি ডিজিজ বা হার্ট অ্যাটাক হতে পারে যা বাদামের ভিটামিন ই দূর করতে সক্ষম। প্রতিদিন মাত্র ১ মুঠো বাদাম শরীরে এই ফ্যাটি অ্যাসিড ও ভিটামিন ই এর ঘাটতি কমায় ও হাটের্র সমস্যা জনিত রোগ থেকে হৃৎপি-কে সুরক্ষিত রাখে।
২) কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়
বিভিন্ন খাবারের ফ্যাট স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ হলেও বাদামের ফ্যাট স্বাস্থ্যের জন্য ভালো বলে নিশ্চিত করেছেন গবেষকরা। বাদামে বিদ্যমান অসম্পৃক্ত চর্বি বা ফ্যাট, ফাইবার ও প্ল্যান্ট স্টেরোল কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। যাঁরা উচ্চ কোলেস্টেরলের সমস্যায় আক্রান্ত তাদের জন্য বাদাম অনেক কার্যকরী একটি ওষুধ। খাদ্যতালিকায় প্রতিদিন মাত্র ১ মুঠো বাদাম কমিয়ে দেবে খারাপ কোলেস্টোরল।
৩) ডায়বেটিসের ঝুঁকি কমায়
বাদামের ফাইবার রক্তের গ্লুকোজ্বের পরিমাণ কমাতে অত্যন্ত কার্যকরী। এই ফাইবার ডায়বেটিসের হাত থেকে রক্ষা করার ক্ষমতোা রাখে। এ ছাড়াও ডায়বেটিসে আক্রান্ত রোগী প্রতিদিন ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বাদাম খেলে শরীরের গ্লুকোজ্বের পরিমাণ ঠিক রাখতে পারেন। বাদাম রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিশেষভাবে কার্যকরী।
৪) কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করে
বাদামের ফাইবার আমাদের হজমক্রিয়া ত্বরান্বিত করে থাকে। এতে কোষ্ঠকাঠিন্যের সুমসসা দূর হয়। প্রতিদিন ১ মুঠো বাদাম খেলে আমাদের পরিপাকতন্ত্র উন্নত হয়। ফলে এইধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায় সহজেই।
৫) রক্ত জমাট বাঁধার হাত থেকে রক্ষা করে
বাদামে বিদ্যমান এল-আরজিনিন অ্যামিনো অ্যাসিডটি ধমনিতে রক্ত সঞ্চালন উন্নত করে। ধমনিকে নমনীয় করতে সহায়তা করে এল-আরজিনিন। বাদামের এল-আরজিনিন রক্ত জমাট বাঁধার হাত থেকেও রক্ষা করে। ধমনিতে প্রবাহিত রক্তকে জমাট বাঁধাতে বাঁধা দেয় এই এল-আরজিনিন। এ ছাড়াও শরীরের যে কোনো ক্ষত বা কাঁটা-ছেঁড়া দ্রুত নিরাময়ে বাদামের এল-আরজিনিন অত্যন্ত কার্যকরী।

Share.

About Author

Leave A Reply