সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট

0

ডেস্ক রিপোর্ট :
সবুজবাংলা২৪ডটকম, ঢাকা : সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী ২১ নভেম্বর। ১৯৭১ সালের এই দিনে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে ‘বাংলাদেশ লিবারেশন ওয়ার ফোর্সেস’ গঠনের মাধ্যমে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী অস্তিত্ব লাভ করে। সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ডাক অধিদপ্তর ১০ টাকা মূল্যমানের একটি স্মারক ডাকটিকেট, ১০ টাকা মূল্যমানের একটি উদ্বোধনী খাম, ৫ টাকা মূল্যমানের একটি ডাটা কার্ড ও একটি বিশেষ সিলমোহর প্রকাশ করেছে।
রোববার (২১ নভেম্বর) সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে স্মারক ডাকটিকিট ও উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত এবং ডাটা কার্ড প্রকাশ করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। মন্ত্রী এ সময় বিশেষ সিলমোহর ব্যবহার করেন।
সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বিবৃতি দিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী। বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী সম্মিলিতভাবে দখলদার পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণের সূচনা করে ১৯৭১ সালের ২১ নভেম্বর। ৫০ বছর আগে যুদ্ধের ময়দানে বীরত্ব ও ত্যাগের মহিমাকে স্মারক ডাকটিকিটের মাধ্যমে স্মরণীয় করে রাখতে পারা আমাদের জন্য খুবই গৌরবের।’
মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘বাঙালি জাতিকে স্বাধিকার আদায়ে উদ্বুদ্ধ ও প্রস্তুত করে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ রাতে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বাঙালি সেনা, ছাত্র, ও সাধারণ জনতা মিলে গড়ে তোলেন সামরিক বাহিনী। শুরু হয় দুর্বার মুক্তিযুদ্ধ।’
মন্ত্রী বলেন, ‘একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ছিল জনযুদ্ধ। মুক্তিযুদ্ধের মাঠেই বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর জন্ম হয়। জনগণ ও সশস্ত্র বাহিনী মনে-প্রাণে একাত্ম হয়ে পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। তার মধ্যে দিয়ে জনগণের সঙ্গে সেনাবাহিনীর আত্মার ও রক্তের সম্পর্ক তৈরি হয়। বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী জাতির সাহস, আস্থা, আত্মবিশ্বাস এবং গর্বের প্রতীক। বাংলাদেশের জাতীয় উন্নয়ন কর্মকা-ে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা অতি গুরুত্ববহ ভূমিকা পালন করছেন।’
স্মারক ডাকটিকেট অবমুক্ত অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. খলিলুর রহমান, সশস্ত্র বাহিনীর বিভাগের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইকবাল আহমেদ, বিটিআরসি‘র ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র এবং ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সিরাজ উদ্দিন বক্তৃতা করেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অধীন বিভিন্ন সংস্থা প্রধান এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব ডাকটিকিট প্রকাশের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার ভূমিকার প্রশংসা করেন।
ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইকবাল সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এ ধরনের উদ্েযাগ নেওয়ায় মন্ত্রীকে সশস্ত্র বাহিনীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান।

Share.

About Author

Leave A Reply